আজকের বার্তা | logo

১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৬শে মে, ২০১৮ ইং

খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে নির্বাচন হতে দেয়া হবে না- বরিশালে খন্দকার মোশারফ

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৮, ২০১৭, ০১:২২

খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে  নির্বাচন হতে দেয়া হবে না- বরিশালে খন্দকার মোশারফ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরিশালে বিএনপির কর্মিসভায় প্রধান অতিথি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন বলেন, মিথ্যা সাজানো মামলায় বিএনপির চেয়ারপার্সনকে সাজা দেয়ার ষড়যন্ত্র চলছে। বেগম খালেদা জিয়াকে নির্বাচনের বাইরে রাখার চেষ্টা করা হলে সেই নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। তিনি আ’লীগকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘বেশি দুঃসাহস নেবেন না, তার ফল ভাল হবে না। ২০১৪ সাল ও ২০১৮ সাল এক নয়। আপনাদের ষড়যন্ত্র বিদেশি বন্ধু রাষ্ট্রগুলো টের পেয়েছে।’ গতকাল বুধবার সকালে নগরীর অশি^নী কুমার হলে মহানগর বিএনপির কর্মিসভায় তিনি এসব কথা বলেন। কর্মিসভায় সভাপতিত্ব করেন কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও মহানগর সভাপতি মজিবর রহমান সরোয়ার। কর্মিসভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন আরও বলেন, ওয়ান ইলেভেনের সময়ে শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে যত মামলা হয়েছে তা খারিজ হয়ে গেছে। অথচ বিএনপি চেয়ারপার্সনকে বানোয়াট মামলায় আদালতের কাঠগড়ায় হাজির হতে হচ্ছে। তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, সোজা আঙুলে ঘি উঠবে না। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে জনগণকে সাথে নিয়ে আন্দোলনে নামতে হবে। খন্দকার মোশারফ বলেন, একাদশ নির্বাচন নিরপেক্ষ হতে হবে। তবে শেখ হাসিনার অধীনে জাতীয় নির্বাচন এ দেশে হতে দেয়া হবে না। নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আ’লীগ ৩০টি আসনও পাবে না। দলের সাংগঠনিক শক্তি নিয়ে বক্তাদের ক্ষোভ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ঢাকায় গিয়ে মহাসচিবসহ নীতি নির্ধারকদের সঙ্গে কথা বলে দলের স্থানীয় সমস্যাগুলো সমাধানের চেষ্টা করবেন। সিটি মেয়র প্রার্থী প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিএনপি সিটি নির্বাচনে যাবে। তৃণমূলের মতামত ছাড়া কাউকে এখানে মনোনয়ন দেয়া হবে না। কর্মিসভার সভাপতি মজিবর রহমান সরোয়ার বলেন, দেশে গণতন্ত্র নেই বলে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়। সাজানো মামলায় খালেদা জিয়াকে জেলে পুরে রেখে কোন নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। নেত্রী জেলে থাকলে দলের লাখ লাখ নেতাকর্মী স্বেচ্ছায় কারাবরণ করবেন। তিনি সরকারকে হুঁশিয়ার করে বলেন, খালেদা জিয়ার কিছু হলে জ¦লবে আগুন ঘরে ঘরে। এজন্য নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেন সরোয়ার। তিনি বলেন, আগামী সিটি নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ার বিষয়ে দলের স্থায়ী কমিটি সিদ্ধান্ত নিবেন। এজন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকারও আহবান জানান সরোয়ার। মহানগরের কর্মিসভায় প্রধান অতিথি ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন বক্তৃতা করার আগে স্থানীয় নেতারা বক্তৃতা করেন। বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আবুল কালাম শাহীন বলেন, বিএনপির এক শ্রেণির নেতাকর্মী আন্দোলন-সংগ্রামের নামে ফটোসেশন ও সেলফি রাজনীতি করছেন। তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হয় না। চাটুকারদের পদায়ন করা হয়, মূল্যায়ন পান না দলের জন্য জেল-জুলুম ভোগ করা নেতাকর্মীরা। দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি এবায়েদুল হক চাঁন বলেন, ‘মেয়র কামাল মঞ্চে বসা আছেন, তাকে নিয়ে মঞ্চের সামনে বসা মাঠের কর্মীদের অনেক কথা বলার আছে। তারা বক্তৃতা করার সুযোগ না পাওয়ায় তাদের পক্ষ হয়ে আমি বলছি, আগামী নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়নের আগে মাঠের কর্মীদের মতামত নিবেন।’ মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জিয়াউদ্দিন সিকদারসহ কয়েকজন বক্তা বলেন, বিএনপির মূল চালিকাশক্তি হলো ছাত্রদল। অথচ ২০১০ সাল থেকে বরিশালে ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নেই। ফলে দলে ভবিষ্যত নেতৃত্ব তৈরি হচ্ছে না। এসময় কয়েকজন বক্তা বলেন, কিছু কিছু নেতা নির্বাচন এলে বসন্তের কোকিলের মতো এসে দলের রাজনীততে সক্রিয় হন। নেতৃবৃন্দ আসন্ন সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে দলের প্রার্থী মনোনয়নের আগে তৃণমূল নেতাকর্মীদের মতামত নেয়ার দাবি তোলেন। কর্মিসভায় আরও বক্তৃতা করেন বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান বেগম সেলিমা রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস আক্তার জাহান শিরিন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল হক নান্নু, সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামাল, উত্তর জেলা বিএনপি সভাপতি মেজবাউদ্দিন ফরহাদ, নগর বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি মনিরুজ্জামান ফারুক, সহ সম্পাদক আনোয়ারুল হক তারিন প্রমুখ। একই স্থানে বিকালে দক্ষিণ জেলা বিএনপির কর্মিসভা অনুষ্ঠিত হয়।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।